bangla-sydney
bangla-sydney.com
News and views of Bangladeshi community in Sydney













কোথায় যায় প্রাণ?
ড. শামস্‌ রহমান


(কাঁকনের স্মরণে)


যুদ্ধের শুরুতেই কাকাকে হারাই।
এত কাছে থেকে মৃত্যু দেখিনি কখনো তখনও।
শুনেছি প্রতিবেশীর মৃত্যুর কথা;
কাগজে দেখেছি মৃত দেহ অসংখ্য।
এসব মৃত্যু তখন মনে হতো শুধুই সংখ্যা।।

কাকার মৃত্যুই মৃত্যু সম্পর্কে প্রথম ভাবায়,
অবিনশ্বরের এ অদ্ভুত বিস্ময় -
শান্ত-শুয়ে, মনে হয় অমৃত পানে
গভীর ঘুমে;
তবু বলে মৃত এ জনমে।
দেহ আছে, নেই শুধুই প্রাণ;
কোথায় যায় প্রাণ?
দিদা বলতো দেখিস, তপ আবার আসবে ফিরে।।

কাঁকনের সাথে প্রথম পরিচয়
সেই শ্যাম দেশে,
উন্নিশ্য বেরাশির গ্রীষ্মের শেষে।
চার-পাঁচ বছরের
লাউয়ের ডগার গড়নে গভীর নয়নে
সে এক মিষ্টি মেয়ে তখন।
মা, এটা সূর্য কাকা- ওর বাবা বলে।
সেটাই আমাদের প্রথম পরিচয়।
আদরে আলতো করে নেড়ে দেই ওর মাথার চুল-
ঘন, যেন অমাবস্যাচ্ছন্ন কোটি কোটি চুলের বাহার।
কাঁকন তখন
শুধুই কাহোই চড়ানো চুলের বাঁধন দুলিয়ে
তাকিয়ে থাকে দূরে দিগন্তের ওপারে।
ভেজা দৃষ্টি তার রয়ে যায় সবার অগোচর।।

তারপর? -
পৃথিবী থেকে ঝড়ে পড়ে অনেকটা সময়;
আজ তা এক চতুর্থাংশ শতাব্দীর বেশী বলে মনে হয়।
হঠাৎ কাঁকনের সাথে আবার দেখা।
ওর বাবা বলে এই কাকাকে চেন?
ও বলেনি কিছুই। শুধুই তাকিয়ে থাকে
এক দৃষ্টিহীন দৃষ্টিতে -
অভিব্যক্তিতে তার
আমি তখন শুধুই সুদূর দেশের
ভেলা-হারা খুকুর সেই কাবলিওয়ালা।।

কাঁকনের অনেক কষ্ট তখন।
ইচ্ছে করে আদর কোরে ওর মাথায় হাত বুলাতে;
ভুলাতে এ জনমের কষ্ট যত!
সূর্যরশ্মি থেকে নিয়ে শক্তি,
সমুদ্র থেকে সাহস,
বটের অদম্য মনোবল!
তারপরও পারিনি বাড়াতে বাহু।
ওর অসংখ্য চুল তখন শুধুই গুটি কয়েক সংখ্যা।।

কাকার মৃত্যু
সে এক নিদারুণ কষ্ট।
তবে প্রকৃতির নিয়মেই ঝরে পড়ে পুরাতন।
কিন্তু কাঁকন?
ওরা যখন ছেড়ে যায় কাকাদের?
রেখে যায় অবুঝ, রক্ত মাংসে গড়া অস্তিত্ব?
বোঝার আগেই মধুময় এ প্রকৃতি-বিশ্ব;
সে কষ্ট বেশি কষ্টকর।।

শুরুতে
দেহ আর প্রাণ আসে একই সাথে। থাকে
হয়ে বিশ্বাসী, একে অপরের পাশাপাশি।
এভাবেই জনম জীবনের।

শেষে-
প্রাণ যায় চলে, নীরবে
দেহকে পিছনে ফেলে।
এভাবেই ছায়া ফেলে মৃত্যু।

দেহ থাকে পড়ে সবার গোচরে;
দেখা যায়, ছোঁয়া যায় তারে;
তবু থেকেও থাকেনা কিছুই।

প্রাণ যায় চলে;
যায় না ছোঁয়া, যায় না দেখা তারে;
তবুও না থেকেও থাকে প্রাণ,
প্রাণের গহীনে ঘুরে ফিরে বারে বারে।

দেহ আর প্রাণের এ এক অদ্ভুত লুকোচুরি খেলা।
এ খেলা চলছে এভাবেই, কাল থেকে কালে।
তাই, কাঁকনের মাও কি দিদার মত বলে?
দেখো, কাঁকন আবার আসবে ফিরে।।



লিংচোপিং, সুইডেন, নভেম্বর ২০১৫ তে শুরু এবং
সাংহাই, এপ্রিল ২০১৬ তে শেষ।




Share on Facebook                         Home Page



                            Published on: 4-May-2016