bangla-sydney
bangla-sydney.com
News and views of Bangladeshi community in Sydney












এই লিংক থেকে SolaimanLipi ডাউনলোড করে নিন



কাউসার খানের প্রতিবেদন
সাম্প্রতিক অস্ট্রেলিয়া (৮)



সবচেয়ে বড় ঘোড়দৌড় মেলবোর্ন কাপ

মেলবোর্নে প্রতিবারের মতো এবারেও আয়োজিত হয়ে গেল দেশটির সবচেয়ে বড় ঘোড়া দৌড় প্রতিযোগিতা মেলবোর্ন কাপ ২০১৮। প্রতিবছর নভেম্বরের প্রথম মঙ্গলবারে মেলবোর্নের ফ্লেমিংটনের রেসকোর্স মাঠে আয়োজিত হয় এই প্রতিযোগিতা। এবারেও ব্যতিক্রম না করে আজ মঙ্গলবার অস্ট্রেলিয়া-বাসী উপভোগ করল দেশটির ঐতিহ্যবাহী এই ঘোড়া দৌড়। ১৮৬১ সাল থেকে শুরু হওয়া এই মেলবোর্ন কাপ এতটাই জনপ্রিয় যে, আয়োজন উপলক্ষে শুধুমাত্র অস্ট্রেলিয়ার ভিক্টোরিয়া রাজ্যে সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হলেও দুপুরের পর অঘোষিতভাবে সকল রাজ্যেই ছুটি চলে এদিনে।
বেলা তিনটায় শুরু হওয়া এই মেলবোর্ন কাপের স্থায়িত্ব অল্প সময়ের জন্য হলেও আয়োজনের আমেজ ব্যাপক। বেলা তিনটায় শুরু হয় প্রতিযোগিতা। তবে গোটা রাজ্য জুড়ে উৎসব মুখর পরিবেশ বিরাজ ছিল দুপুর হওয়ার আগ থেকেই। দুপুরের খাবার খেয়েই রেসকোর্স মাঠ মুখি হতে শুরু করে অস্ট্রেলীয়রা। ঘোড়া দৌড় প্রতিযোগিতা শুরু হওয়ার আগ থেকেই উপচে পড়া ভিড় দেখা যায় স্টেডিয়াম জুড়ে। ফ্লেমিংটনে বৃষ্টি হলেও তা উপেক্ষা করে দর্শক ছুটে আসেন মাঠে। এবারের মেলবোর্ন কাপ জিতে নেয় ক্রস কাউন্টার। তাঁর আর্থিক পুরষ্কারের পরিমাণ প্রায় ৪০ লাখ অস্ট্রেলীয় ডলার। মেলবোর্ন কাপ জয়ী ক্রস কাউন্টার ঘোড়াটি প্রথম বিজয়ী যে কিনা যুক্তরাজ্যে প্রশিক্ষিত হয়েছে।



বাংলাদেশি পুলিশ কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ



সিডনিতে এক বিশেষ প্রশিক্ষণ কর্মশালা শেষ করেছেন বাংলাদেশ পুলিশের ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) ১৯ জন কর্মকর্তা। দুই সপ্তাহব্যাপী এ প্রশিক্ষণ কর্মশালায় অপরাধমূলক তদন্ত বিষয়ে বিশেষ প্রশিক্ষণ গ্রহণ করেন তারা। অস্ট্রেলিয়ার ওয়েস্টার্ন সিডনি বিশ্ববিদ্যালয়ে গত ২২ অক্টোবর থেকে শুরু হয়ে এ প্রশিক্ষণ চলে ২ নভেম্বর পর্যন্ত। কর্মশালার অংশ হিসেবে বাংলাদেশের পুলিশ কর্মকর্তারা অস্ট্রেলিয়ান ফেডারেল পুলিশ, নিউ সাউথ ওয়েলস পুলিশের নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্র ও সারি হিলস পুলিশ স্টেশন ঘুরে দেখেন।
প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণকারী দলটির নেতৃত্ব দিয়েছেন ডিআইজি আবু হাসান মুহাম্মদ তারিক। বাংলাদেশে অপরাধ প্রবণতা কমিয়ে আনতে এবং কোনো অপরাধ সংগঠিত হওয়ার পর অপরাধীকে দ্রুত শনাক্ত করার দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে এ প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়।
প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণকারী পুলিশ কর্মকর্তারা হলেন; শেখ শাকিল উদ্দিন আহমেদ, মো. ইকবাল, মিয়া মাসুদ করিম, এ আর এম আলিফ, মো. তাহেরুল হক চৌহান, আবু আশরাফ, মারুফা ইয়াসমিন, এস এম ফজলুল হক, মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান, এস এম তারেক রহমান, মো.আবদুল্লাহ আল মামুন, ফরিদ উদ্দিন, নাসির আহমেদ শিকদার, মো. আবদুল হান্নান, রিমা সুলতানা, মো. হুমায়ূন কবির ও মোহাম্মদ লুতফর রহমান। এ ছাড়া ছিলেন জ্যেষ্ঠ সহকারী সচিব মুহাম্মদ আনিসুজ্জামান খান।
এ কর্মশালার সমন্বয়কারী ছিলেন ওয়েস্টার্ন সিডনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিজিটিং ফেলো ড. নাহিদ হোসাইন।



ভূতের উৎসবে অস্ট্রেলিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী

অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে গণমাধ্যমের ব্রেকিং নিউজে হয়তো তাঁকে এখন আর দেখা যায় না। কেননা তিনি ক্ষমতাচ্যুত হয়ে এখন সাবেক প্রধানমন্ত্রী। তাই অস্ট্রেলিয়ার এই সাবেক প্রধানমন্ত্রী ম্যালকম টার্নবুল সময় কাটিয়েছেন ভূতদের সঙ্গে। আর ভূতদের উৎসবে যোগ দিতে বেশভূষাও পাল্টিয়েছেন সে অনুযায়ী। তিনি একা নন, তাঁর সঙ্গে অংশ নিয়েছে তাঁর পুরো পরিবার। ১৯৩০ সালের জনপ্রিয় কমিকস টিন টিন-এর বিভিন্ন চরিত্রের পোশাক পরেছেন সবাই মিলে। সাবেক প্রধানমন্ত্রী টার্নবুলকে দেখা গেছে সবুজ কোট-টাই আর একই রঙের মাথায় গোল টুপি। টিনটিন কমিকসের প্রফেসর ক্যালকুলাস এ ধরনের পোশাকই পরতেন।
টার্নবুল ও তাঁর পরিবারের এই ভিন্ন অদ্ভুত সাজসজ্জার কারণ হলো হ্যালোইন। প্রতিবছরের মতো এবারও ৩১ অক্টোবর যুক্তরাষ্ট্রে পালিত হয়েছে এই উৎসবটি। তবে এখন ধীরে ধীরে এই উৎসবের ছোঁয়া ছড়িয়ে পড়ছে গোটা বিশ্বেই। ক্রিসমাসের আগে এটিই ছিল অস্ট্রেলিয়ার বড় উৎসব। হ্যালোইন অনেকটা গল্প-নির্ভর সাংস্কৃতিক উৎসবের মতো। বিচিত্র সব ভুতুড়ে পোশাক পরা, মুখোশ পরে বাচ্চাদের ক্যান্ডি সংগ্রহ, বিচিত্র পোশাকে শিশুদের সাজিয়ে প্যারেডে যোগ দেওয়াএসবই দিনটির বিশেষত্ব। আর এই হ্যালোইন উদযাপনেই এমন বিচিত্র সাজ দিয়েছেন টার্নবুল ও তাঁর পরিবার। ইনস্টাগ্রামে সপরিবারে হ্যালোইনের পোশাক পরা ছবি আপলোড করে সবাইকে হ্যালোইনের শুভেচ্ছা জানিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী।



পদোন্নতির চেয়ে পদত্যাগ শ্রেয় মনে হলো তাঁর!

অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক ও ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ) বোর্ডের পরিচালক মার্ক টেলর পদত্যাগ করেছেন। গেল সোমবার সিডনির স্থানীয় সময় বেলা দুইটায় এক সংবাদ সম্মেলনে নিজের পদত্যাগের কথা জানান টেলর।
ঠিক চার দিন আগে সিএ চেয়ারম্যান ডেভিড পিভার তাঁর পদ থেকে সরে দাঁড়ান। সিএ এর বর্তমান সদস্যদের মধ্যে সাবেক অধিনায়ক মার্কই সবচেয়ে বেশি সময় ধরে বোর্ডের সঙ্গে কাজ করেছেন। বিশ্লেষকেরা মনে করছেন, ইতিহাসের অন্যতম সেরা ক্রিকেটারের সেবা থেকে বঞ্চিত হবে অস্ট্রেলীয় ক্রিকেট।
হঠাৎ পদত্যাগের কারণ নিয়ে কিছু জানাননি টেলর। শুধু বলেছেন, আমি এমন একটি সময়ে পৌঁছেছি, যেখান থেকে হয় ওপরে উঠতে হবে, নয়তো নিচে নেমে যেতে হবে। আমি এমন একটা জায়গায় দাঁড়িয়ে, যেখান থেকে হয় আমি সিএর চেয়ারম্যান হতে পারি অথবা পদত্যাগ করতে পারি।
পদোন্নতির চেয়ে পদত্যাগ করাকেই তাঁর জন্য শ্রেয় মনে করেছেন টেলর, আমার সিদ্ধান্ত সঠিক বলে আমি মনে করি। আমি আশা করছি, জাতীয় দলের অন্য কোনো সাবেক খেলোয়াড় নতুন কোনো ধারণা নিয়ে পরিচালকের পদে আসার সুযোগ পাবে। টেলরের পদত্যাগ নিয়ে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার অন্তর্বর্তীকালীন চেয়ারম্যান আর্ল এডিংস কথা বলেছেন। টেলরকে ধন্যবাদও জানিয়েছেন তিনি, মার্কের মতো একজন কিংবদন্তি ক্রিকেটার আমাদের সংস্থার জন্য একটি সম্মানজনক বিষয় ছিল। আমরা তাঁর শুভ কামনা করি।



কাউসার খান: অভিবাসন আইনজীবী, সিডনি, অস্ট্রেলিয়া। ইমেইল: immiconsultants@gmail.com




Share on Facebook                         Home Page



                            Published on: 8-Nov-2018