bangla-sydney
bangla-sydney.com
News and views of Bangladeshi community in Sydney













বাংলায় ইংরেজি উচ্চারণ শেখার বই
দিলরুবা শাহানা



এক খবরে জানা গেল বাংলাদেশ সরকার স্কুল শিক্ষকদের ইংরেজি শেখানোর দক্ষতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে এক প্রকল্প নিয়েছেন বা শুরু করতে যাচ্ছেন। ভাল উদ্যোগ নিঃসন্দেহে। যারা শেখাবেন তাদেরকে যথাযথ প্রশিক্ষণ দিয়ে তৈরি করা জরুরী । এইসব প্রশিক্ষণের জন্য প্রয়োজন যথেষ্ট আর্থিক যোগান। সরকারী উদ্যোগ যদি হয় তবে তাতে আর্থিক ব্যবস্থা থাকবেই বা থাকার কথা। বাংলাদেশ সরকার ব্রিটিশ কাউন্সিলের সাথে এই প্রকল্প বাস্তবায়ন বিষয়ে মোটা অংকের চুক্তিও করেছেন। আশা করা যায় ইংরেজি গ্রামার ও উচ্চারণ এই দুটি বিষয়ই প্রশিক্ষণের অন্তর্ভুক্ত হবে। গ্রামার বা ব্যাকরণ ভালভাবে না শিখলে, না জানলে ভাষাজ্ঞান অর্জিত হয় না। যে কোন ভাষার গ্রামার ভাল জানা শুদ্ধ ভাবে লিখতে পারার পূর্বশর্ত। প্রশ্ন হল লিখতে জানলেই হবে না মুখে শুদ্ধ উচ্চারণে বলতে পারলেই বলা যায় বা যাবে ভাষাটা একজন করায়ত্ত করেছেন বা ভাষাতে তার দখল আছে।

ভাষা শেখার জন্য যথোপযুক্ত বইপত্র প্রয়োজন এবং যিনি শেখাবেন তারও উপযুক্ত ভাষাজ্ঞান ও মুখে বলার দক্ষতা থাকতে হবে।

কাকতালীয় ভাবে ইংরেজি শেখানো নিয়ে আমার হাতে ইদানীং একটি বই এসেছে। মনে হচ্ছে বইটির প্রয়োজনীয়তা আছে, তাই সবার সামনে বিষয়টি নিয়ে বলার জন্য এই প্রবন্ধ । বইটির নাম ইংরেজি উচ্চারণের গাইড বই। লেখক আমিন রহমান। অনেক খাটাখাটনি করে, যত্ন নিয়ে লেখক বইটি লিখেছেন। উচ্চারণ জানাটা অবশ্যই জরুরী। কেউ হয়তো ইংরেজি ভাল লিখে পারেন কিন্তু উচ্চারণ নিয়ে দ্বিধাগ্রস্ত বলে মুখ খুলতে অস্বস্তি বোধ করেন। এইসব ক্ষেত্রে বইটি তাকে সাহায্য করবে।
কারোর মনে প্রশ্ন জাগতে পারে উচ্চারণ শেখার জন্য গাইড বইয়ের দরকার কি? কারোর কারোর মতে বিবিসির ইংরেজি প্রোগ্রাম শুনলেই তো ভাল ইংরেজি উচ্চারণ শেখা যায় । হ্যাঁ এরকম পন্থা অনুসরণ করে অনেকেই ইংরেজি ভাষায় সড়োগড় হয়ে উঠেন হয়তো। তবে যদি তাকে বলা হয় কেন এবং কিভাবে এরকম উচ্চারণ করা হল তা কিন্তু ইনি বুঝিয়ে বলতে পারবেন না। বাংলা ভাষায় ভ বর্ণটি বলার সময় আমাদের জিহ্বা যে ভাবে মুখের ভিতর সঞ্চালিত হয় ইংরেজি বর্ণ vএর উচ্চারণের সময় ওইভাবে জিহ্বা সঞ্চালন করলে চলবে না। তাতে কি বলা হচ্ছে বোঝা যাবে না। এইসব বিষয়গুলো সুন্দরভাবে নিজে নিজে শেখার জন্য আমিন রহমানের বইটি সাহায্য করবে। বইটির ইংরেজি নাম ENGLISH PRONOUNCIATION GUIDE BOOK FOR NATIVE BENGALI SPEAKER.

বইটির পৃষ্ঠা সংখ্যা ৮৯। এই ছোট্ট বইটি লেখার জন্য ২৪টি বই লেখক ধৈর্য সহ ঘেঁটেছেন, পড়েছেন। উল্লেখ্য যে উচ্চারক প্রত্যঙ্গের ছবিসহ ব্যাখ্যা করা হয়েছে উচ্চারণ কিভাবে শুদ্ধ করা যাবে। কোন বর্ণ উচ্চারণে জিহ্বা কোথায় থাকবে বা জিহ্বা তখন মুখের ভিতর তালু বা দাঁত স্পর্শ করবে ইত্যাদি ইত্যাদি। কেউ বিবিসি শুনে ইংরেজি উচ্চারণ রপ্ত করছেন হয়তো তবে যদি সাথে সাথে এই বইটির কথামত উচ্চারক প্রত্যঙ্গ কিভাবে চালিত হচ্ছে মিলিয়ে করেন তবে বিষয়টা আরও সহজ হবে। বইটির সাথেও উচ্চারণ প্র্যাকটিস বা চর্চার জন্য audio/video clips(DVD 1) রয়েছে।
শেষ মলাটের বাইরে কিছু প্রয়োজনীয় তথ্য রয়েছে । যেমন বইটি কার জন্য?, এতে কি সম্বন্ধে আলোচনা আছে? আর কি পাবেন?।
বইটি কার জন্য তথ্যটি বইয়ের মলাট থেকেই তুলে দেওয়া হল।
স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র/ছাত্রী, পেশাদার ব্যক্তি, বিভিন্ন কর্মচারী, ভ্রমণকারী, আন্তর্জাতিক ব্যবসায়ী এবং অন্যান্যরা- যারা বোধগম্য ইংরেজি শিখতে চান ও ইংরেজি ভাষায় দেশী ও বিদেশীদের সাথে কথা বলতে চান, এই self-study গাইড বই তাদের জন্য।

যে বিষয়টি না বললেই নয় তা হল উচ্চারণ যথাযথ করতে হলে বাক প্রত্যঙ্গের ব্যবহার বোঝানোর জন্য বইয়ে কিছু ছবি সংযুক্ত করা হয়েছে। ছবির সাহায্য নেওয়া বিষয়টি একদিকে ধন্যবাদ দাবী করে। অন্য দিকে এই প্রয়োজনীয় ছবিগুলো আরও বড় ও স্পষ্ট হলে ভাল হত। আরো মনে হল এই বইতে প্র্যাকটিক্যাল ও প্র্যাকটিস শব্দগুলোর বদলে ব্যবহারিক ও চর্চা শব্দ দুটো দেওয়া যেতো।

বইটির প্রকাশকাল ২০১৬। ঢাকাতে প্রকাশিত। প্রকাশক জোবেদা ও আমিন রহমান। ছাপা ও বাধাই ভাল। মলাট দৃষ্টি নন্দিত ও আকর্ষক। মুদ্রণ বিভ্রাট নাই বললেই চলে। মূল্য বাংলাদেশের টাকায় ৬০০, ইউএস ডলারে ২০ ও অস্ট্রেলিয়ান ডলারে ২৫।

উল্লেখ করার মত বিষয় হল বইটির লেখক ভাষাতাত্বিক, ধ্বনি-বিশেষজ্ঞ নন। লেখক একজন ইঞ্জিনিয়ার। তারপরও যত্ন নিয়ে প্রয়োজনীয় এবং উচ্চারণ শেখার কারিগরি দিক নির্দেশিকা বিষয়ে একটি বই লিখেছেন, নিজ উদ্যোগে প্রকাশও করেছেন। এই প্রয়াসকে কি বলা যায়? এটা বোধহয় নিজ জাতি ও নিজ ভাষাভাষীদের সাহায্য করার ইচ্ছা থেকে উৎসারিত।





দিলরুবা শাহানা, মেলবোর্ন, অস্ট্রেলিয়া


Share on Facebook               Home Page             Published on: 18-Nov-2019


Coming Events:



দুই বাংলার শিল্পী এক মঞ্চে...