bangla-sydney
bangla-sydney.com
News and views of Bangladeshi community in Sydney












এই লিংক থেকে SolaimanLipi ডাউনলোড করে নিন



সিডনিতে মাহির শো এবং ধান ভানতে শিবের গীত
আসাদ শামস



শৈশবে মায়ের কাছে শোনা কবিতা নজরুলের 'ওমর ফারুক', 'লিচু চোর', 'কাঠ বিড়ালী'; রবি ঠাকুরের 'দুই বিঘা জমি', 'সামান্য ক্ষতি' ইত্যাদি বড় কবিতা ছাড়াও অনেকগুলি ছোট ছড়া আমার বর্ণ পরিচয়ের আগেই ঘুমপাড়ানি গানের মত মুখস্থ হয়ে গিয়েছিল, কারণ ওগুলি আমার মায়ের মুখস্থ ছিলো।

ক্লাস ফাইভে সম্ভবত পড়েছিলাম গোলাম মোস্তফার কয়েক পৃষ্ঠার কাব্যময় প্রবন্ধ 'পদ্মা', যেটা পড়তে পড়তে কবিতার মত মুখস্থ কোরে ফেলেছিলাম। চর্চার অভাবে ওটার প্রায় পুরোটাই ভুলতে বসেছি। কাব্য-প্রবন্ধটি আমি গুগল সার্চ দিয়ে কোথাও পাইনি যে আমার স্মৃতিকে ঝালাই করব। প্রতারক স্মৃতি! আর অবহেলিত কবি গোলাম মোস্তফা! শিল্পী মোস্তফা মনোয়ারের বাবা। প্রফেট (সঃ) এর জীবন নির্ভর বিখ্যাত গ্রন্থ 'বিশ্ব নবী'র রচয়িতা। কাব্যময় একটা জীবনী-গ্রন্থ। যে বইটির সাথে অন্য ইতিহাস এবং অন্য বইয়ের মিশেল দিয়ে প্রবন্ধ রচনাই ছিলো আমার স্কুল এবং মহকুমা (বর্তমানে রাজবাড়ী জেলা ) পর্যায়ে অর্ধ-ডজন এর মত প্রথম পুরস্কার প্রাপ্তির গোপন রহস্য। (এখন হয় কিনা জানি না, আমাদের সময়ে ঈদ এ মিলাদ উন নবী তে রচনা প্রতিযোগীতা হতো।)

এরপর একে একে কাজী সব্যসাচীর কণ্ঠে 'বিদ্রোহী', 'আনন্দ ভৈরবী', 'উদ্বাস্তু', 'ছন্নছাড়া', সহ অনেক কবিতা দিয়ে কবিতা আর আবৃত্তির প্রতি প্রেম হতে থাকে প্রগাঢ়। সাথে 'শম্ভু মিত্রের 'বোধ', 'কিনু গোয়ালার গলি', হয়ে আরও অনেক কবিতা; রাজবাড়ী কলেজের নবীন বরণে জ্যোতি চট্টোপাধ্যায়ের অনবদ্য আবৃত্তি ছিলো 'ছন্নছাড়া'র কিংবা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অপরাজেয় বাংলা চত্বরে জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায় এর নানা আবৃত্তি।

রেডিওতে 'উত্তরণে' কাজী আরিফ আর প্রজ্ঞা লাবনীর আবৃত্তি প্রেমের কবিতা কিংবা দ্বৈত কণ্ঠে আবৃত্তি দিয়ে রোমান্টিসিজম এর লালন পালন। পরবর্তীতে পূর্ণেন্দু পত্রীর 'কথোপকথন' সহ আরো অনেক ডুয়েট - আবৃত্তি যোগ্য কবিতা গুলি নিয়ে 'শিমুল মোস্তফা' 'শিরীন বকুল' ইত্যাদি আবৃত্তিকারের দ্বৈত আবৃত্তির কথা না বললেই নয়।

তথাপি হাল আমলে মাহি, ব্রততী, মেধা ইত্যাদি মেধাবী এবং জনপ্রিয় আরও আবৃত্তিকারের আবৃত্তির সাথে পরিচয় তাও ফেসবুকিং এর কারণে। এঁদের সবাই স্টার। স্টার নন কিন্তু চমৎকার কিছু আবৃত্তি করেন কিংবা করতেন তাঁদের কথাও এই ব্যক্তিগত স্মৃতিচারণমূলক কড়চায় না বললেই নয়। এই মুহূর্তে মনে পড়ছে ১৯৮১ তে কলেজে পড়াকালীন সিলেট মেডিকেলের কিছু সিনিয়র যেমন মদন পাল দাদা, সুমন্ত দা, হিমাদ্রি শেখর নন্দী দা। আমার সিএমসির প্রিয় একজন ছোটভাই 'তিতাস মাহমুদ।' তিতাস যদি ডাক্তার না হতো ,নিঃসন্দেহে একজন আবৃত্তির মেগাস্টার হত।
অনেকের নাম বাদ পড়লো। ওই সময়ে মদন দা'র কণ্ঠে 'জেলখানার চিঠি' আমার কেন জানি না উৎপল দত্তের আবৃত্তির থেকেও ভালো লাগতো। দাদার সেই কণ্ঠ আর নেই! এটা আমার উপলব্ধি আর আক্ষেপ! সুমন্ত দা এখন ওপাড় বাঙলায়, ফেসবুকে যোগাযোগ লাইকিং এর মাঝেই সীমাবদ্ধ। কে যেন জানিয়েছিল 'হিমাদ্রি দা' নেই পৃথিবীতে, সত্যি? জানি না। সিলেট মেডিকেল প্রোডাক্ট (আমার বড় দুই সহোদর ভাই সিলেট মেডিকেলের হওয়াতে সিএমসির এই আমার ওঁদের সাথে পারিবারিক যোগাযোগ ) হিমাদ্রি' আর বন্ধু তুষারের এমনকি আমার স্নেহের ছোটভাই রাজবাড়ীর আজিম - এদের মত কণ্ঠ আমি আমার জীবনে কমই দেখেছি। আল্লাহ আমাকে ওঁদের মত কণ্ঠ দিলে আমি আবৃত্তিতে ক্যরিয়র (career) গড়ার চেষ্টা করতাম। (সে যোগ্যতা আল্লাহ আমাকে দেন নি বলেই কবিরাজি পেশা নিয়েছি।)
হায় হিমাদ্রি! ফেস -বুক কতজনের খবর পাইয়ে দিলো কিন্তু কতজনের খবর এখনও অজানা।

আবৃত্তির প্রতি প্রগাঢ় ভালোবাসায় জীবনের পাঁচ দশক পাড় করলাম তাও প্রায় তিন বছর আগে।
পেশাগত ব্যস্ততার সাথে আরও কিছু সাংগঠনিক দায়িত্ব পালন এবং সময়-খাদক ফেসবুকিং এর কারণে হাল আমলের আবৃত্তি অনেকই শোনা হয়না। যাওয়া হয়না সিডনির কোনও আবৃত্তি গ্রুপের আড্ডায় কিংবা চর্চা কেন্দ্রে। সপ্তাহে পঁয়তাল্লিশ ঘণ্টা কবিরাজির ভেতর সারা বছরই প্রতি উইক এন্ডে আর প্রতি ক্রিসমাস-নিউ ইয়ার এর অর্ধেক অংশে কাজ করতেই হবে। এর বাইরে বছরে ৬ সপ্তাহের এনুয়াল লিভ, এই চুক্তিতে সই করে ক্লিনিক মালিকের সাথে আমার 'পীড়িতের সেবাদানের' 'প্রাকটিস-কন্ট্রাক্ট।' এর বিনিময়ে আমার গৃহ-ঋণের বেশ খানিকটা আগাম নিয়ে বসে আছি। নইলে মহাজনের সুদের ঘানি টানতে হতো পঁচিশ বছর!
ধান ভানতে শিবের গীত !
মাহির অনুষ্ঠান নিয়ে লিখতে গিয়ে পুরোটাই এলো গৌরচন্দ্রিকা !
যা বলছিলাম শনিবার ১৯ নভেম্বর সিডনিতে মাহির শো। মাহি এখন আবৃত্তির সুপার স্টার। এপাড় বাংলা ওপাড় বাঙলায় ওর পাদচারণা। তারপরেও আমার মত নগণ্য মানুষের ওঁ ফেসবুক বন্ধু। গতবার ওঁ যখন এসেছিলো আমার নানা ক্যাচালে ওঁর শো মিস করেছি। এবারও মিস হবে। তাও আবার বন্ধু এবং আরেক আবৃত্তিকার বন্ধু তুষারের মেয়ের জন্মদিনের দাওয়াত এর জন্য। কবুল করে রেখেছি কয়েক মাস আগে।

মাহির মত আবৃত্তিকারের শো
এর টিকেট মাত্র পাঁচ ডলার?
তিরিশ থেকে পঞ্চাশ ডলার নয় কেন? যাই হোক সবার ওয়ালেট গানের শিল্পীরা ফাঁকা ক'রে রেখেছে নিশ্চয়ই।

কবিতার ঘোর প্রেমিক কিংবা ক্যাজুয়াল প্রেমিকদেরকে বলছি - সিডনির বুকে এই মূল্যে মাহির কবিতা আবৃত্তি আপনার সব পয়সা উশুল করে আরও বেশী কিছু দেবে সে বিষয়ে আমি গ্যারান্টি দিচ্ছি! এমন কি বিফলে মূল্য ফেরত এর নিশ্চয়তা দিলেও ভুল হবে না।



আসাদ শামস, সিডনি,অস্ট্রেলিয়া, ৪ অগ্রাহয়ন ১৪২৩, ১৮ নভেম্বর ২০১৬



Share on Facebook                         Home Page



                            Published on: 18-Nov-2016