bangla-sydney
bangla-sydney.com
News and views of Bangladeshi community in Sydney













কোভিড-১৯ চিকিৎসায়
আইভারমেকটিন এর সাফল্য!




আনিসুর রহমানঃ বেশ কিছুদিন ধরেই কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসায় পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে আইভারমেকটিন (Ivermectin) নামে একটি ওষুধ ব্যবহার হয়ে আসছে। এই ওষুধটি কোন ভ্যাক্সিন নয়, বরং প্রতিষেধক। ভ্যাক্সিন সুস্থ মানুষকে রোগের আক্রমণের হাত থেকে রক্ষা করে। প্রতিষেধক অসুস্থ মানুষকে দ্রুত সুস্থ করে তোলে।

বাংলাদেশ সহ পৃথিবীর নিম্ন এবং মধ্যম আয়ের কিছু দেশে এই ওষুধের কার্যকারিতা নিয়ে ছোট ছোট গবেষণাও পরিচালিত হয়েছে। ১০০ থেকে ৫০০ রোগীর ওপর পরিচালিত এই গবেষণাগুলি আকারে ছোট হবার জন্য এ থেকে আইভারমেকটিন এর গুনাগুণ সম্পর্কে চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত নেয়া সম্ভব নয়।

কিন্তু সম্প্রতি ডক্টর এন্ড্রু হিল, যুক্তরাজ্যের লিভারপুল ইউনিভার্সিটির ফার্মাকোলজি বিভাগের একজন সিনিয়র রিসার্চ ফেলো, এইসব ছোট ছোট গবেষণার ফলাফলকে সমন্বয় করে কোভিড-১৯ চিকিৎসায় আইভারমেকটিন এর কার্যকারিতা সম্পর্কে একটি আশাব্যঞ্জক চিত্র তুলে ধরেছেন। পরিসংখ্যানের ভাষায় এই ধরনের সমন্বয়কারী গবেষণা মেটা-অ্যানালিসিস নামে পরিচিত।

কোন ওষুধের কার্যকারিতা বোঝার জন্য সাধারণত যা করা হয় তা হল, একদল রোগীকে ওষুধটি দেয়া হয় এবং অন্য দলকে দেওয়া হয় না। তারপর দেখা হয় যারা ওষুধ খেয়েছে তাদের মধ্যে রোগ নিরাময়ের হার অন্যদের তুলনায় উল্লেখযোগ্য পরিমাণে বেশি কিনা। আইভারমেকটিন এর কার্যকারিতা বিচারের জন্য মূলত চারটি বিষয়ের প্রতি গুরুত্ব দিয়েছিলেন তিনি -

১. শরীর থেকে করোনা ভাইরাস দূর হতে কতদিন লাগে
২. রোগীর সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে উঠতে কতদিন লাগে
৩. রোগীকে কত দিন হাসপাতালে থাকতে হয় এবং
৪. মৃত্যুর হার

বাংলাদেশ, ইজিপ্ট, ইরান, ইরাক, আর্জেন্টিনা এবং স্পেন পরিচালিত মোট ১১ টি গবেষণার ফলাফল সমন্বয় করে পাওয়া যায় আইভারমেকটিন ব্যবহার করলে -

১. শরীর থেকে দ্রুত করোনাভাইরাস দূর হয়
২. রোগীদের সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে উঠতে ৪৩% কম সময় লাগে
৩. তুলনামূলক ভাবে অনেক অল্প দিন হাসপাতালে থাকতে হয় এবং
৪. মৃত্যুর হার ৮৩% কম

প্রফেসর সাতোশি ওমুরা এবং উইলিয়াম কেম্বেল
প্রসঙ্গত উল্লেখ্য জাপানের কিতাসাতো বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসা বিজ্ঞানী প্রফেসর সাতোশি ওমুরা (Satoshi Ōmura) এবং যুক্তরাষ্ট্রের উইলিয়াম কেম্বেল (William C. Campbell) ১৯৮১ সালে আইভারমেকটিন উদ্ভাবন করেন। ওষুধটি উকুন, কৃমি, বিভিন্ন চর্মরোগ এবং রিভার ব্লাইন্ডনেস নামে এক ধরনের অন্ধত্বের চিকিৎসায় সফলভাবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। চিকিৎসাবিজ্ঞানে তাদের অবদানের জন্য ২০১৫ সালে প্রফেসর সাতোশি ওমুরা এবং উইলিয়াম কেম্বেলকে নোবেল পুরস্কারে ভূষিত করা হয়।

কোভিড-১৯ এর চিকিৎসাতেও ওষুধটি কার্যকরী ভূমিকা রাখবে বলে বিশেষজ্ঞদের ধারণা। ডক্টর এন্ড্রু হিল এর ভিডিও প্রতিবেদনটি নিচে দেয়া হলো।







Share on Facebook               Home Page             Published on: 9-Jan-2021


Coming Events: