bangla-sydney
bangla-sydney.com
News and views of Bangladeshi community in Sydney












এই লিংক থেকে SolaimanLipi ডাউনলোড করে নিন



সিডনিতে হৈমন্তী শুক্লা এবং মেঘমিতা মিত্রের
সঙ্গীত ও নৃত্য সন্ধ্যা



আনিসুর রহমানঃ গত ৩রা মার্চ সিডনির পশিমাঞ্চলিয় সাবার্ব কোয়েকার্স হিল কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠিত হোল কিংবদন্তী শিল্পী হৈমন্তী শুক্লা এবং ধ্রুপদী নৃত্য শিল্পী মেঘমিতা মিত্রের পরিবেশনায় এক ঐশ্বর্যময় সঙ্গীত ও নৃত্য সন্ধ্যা। সিডনির কয়েকজন সঙ্গীত প্রেমী তরুণ এবং গোল্ডকোস্ট কালচারাল ব্রিজে এর আমন্ত্রণে কলকাতা থেকে এসেছিলেন শিল্পীদ্বয়।

সন্ধ্যা ৭টা অনুষ্ঠানের সঞ্চালক সুতপা বড়ুয়া স্বাগত ভাষণ দেবার জন্য মঞ্চে ডেকে নেন ডঃ আব্দুর রাজ্জাককে। এখানে উল্লেখ্য ২০০০ সালে এই শিল্পী কে তিনই প্রথম সিডনি তে আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন।

প্রথমে মেঘমিতা মিত্রর কথ্যক নৃত্য ছিল মন মুগ্ধকর। এর পর মঞ্চে আসেন অনুষ্ঠানের মূল আকর্ষণ উপমহাদেশের প্রখ্যাত শিল্পী হৈমন্তী শুক্লা যিনি শাস্ত্রীও সঙ্গীত, ধ্রুপদী, আধুনিক, ঠুমরী সব গানে সমান পারদর্শী কিছু স্মৃতিচারণের পর একটি রাগ ভিত্তিক গান দিয়ে ('সন্ধ্যা গোধূলি লগনে) তিনি শুরু করেন অনুষ্ঠান। শিল্পীকে তবলায় সঙ্গত করেন কলকাতা থেকে আগত তবলা শিল্পী ঋষি কুমার চট্টোপাধ্যায়। তিনি রাম কুমার চট্টোপাধ্যায় পৌত্র এবং গায়ক শ্রী কুমার জী এর সুযোগ্য পুত্র। হৈমন্তী শুক্লার কালজয়ী গান আর ঋষি কুমারের তবলার বোলে দর্শক স্রোতা ছিলেন মন্ত্রমুগ্ধ। একের পর এক তিনি গান করতে থাকেন কিছু তাঁর নিজের পছন্দের কিছু শ্রোতাদের অনুরোধের। বয়স তাঁর কণ্ঠকে দমাতে পারেনি। তিন সত্যিই একজন কালজয়ী শিল্পী। রাত ৮:৩০ টায় আধা ঘণ্টার নৈশভোজের বিরতি দেয়া হয়। বিরতির পর আরেকটি নাচ নিয়ে ফিরে আসেন মেঘমিতা। নাচের পরে দ্বিতীয় বারের মতো মঞ্চে আসেন হৈমন্তী শুক্লা। এ পর্যায়ে তিনি তাঁর বাবা, প্রখ্যাত সঙ্গীতকার হরিহর শুক্লার একটি ধ্রুপদী সঙ্গীত গেয়ে স্রোতাদের আপ্লুত করে রাখেন।


তাঁর গাওয়া গানগুলির মধ্যে, ওগো বৃষ্টি আমার চোখের পাতা ছুঁয়ো না, এখনও সারেঙ্গী টা বাজছে, ঠিকানা না রেখে ভালই করেছো বন্ধু, আমি অবুঝের মত একি করেছি, আমার বলার কিছু ছিল না উল্লেখযোগ্য।

অনুষ্ঠানর শেষে আয়োজকদের পক্ষ থেকে সমাপনি বক্তব্য রাখেন আনিসুর রহমান নান্টু। তিনি বলেন অনেকেই অভিযোগ করেছেন কেন এত ছোট হলে এ অনুষ্ঠান টি আয়োজন করা হল। অনেকে টিকেট না পেয়ে ফিরে গিয়েছেন। কারণ হিসেবে তিনি উল্লেখ করেন শিল্পীদের ভিসা পেতে একমাসের বেশী সময় লেগেছিল। তাই সময়মত হল না বুক করায় পরবর্তীতে আর কোন বড় হল পাওয়া যায়নি। তবে তিনি হৈমন্তী শুক্লার শ্রোতাদের আস্বস্ত করে বলেন স্রোতারা চাইলে উনি আবার সিডনিতে আসবেন গান শোনাতে।



ছবি এবং ভিডিওঃ রতন কুন্ডু





Share on Facebook                         Home Page



                            Published on: 20-Mar-2018